জাতীয়

ইউনূস-প্রস্তাব ইতিবাচক, আগ্রহোদ্দীপক’

ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ২৩ – নোবেল বিজয়ী মুহাম্মদ ইউনূসকে বিশ্ব ব্যাংকের প্রধান করার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রস্তাবকে ‘ইতিবাচক ও আগ্রহোদ্দীপক’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধিরা।
বাংলাদেশ সফররত এই প্রতিনিধি দলের প্রধান জ্যঁ ল্যাম্বার্ট বৃহস্পতিবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, “প্রস্তাবটি আমাদের খুবই ইতিবাচক ও আগ্রহোদ্দীপক বলে মনে হয়েছে।”
প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে ইউনূসের ব্যাপারে ওই প্রস্তাব দেন শেখ হাসিনা।
এর প্রতিক্রিয়ায় ল্যাম্বার্ট বলেন, “অধ্যাপক ইউনূস একজন সম্মানিত ব্যক্তি। উন্নয়নশীল বিশ্ব কী চায়, সে বিষয়ে তিনি ভালোভাবেই অবগত।”
অবশ্য বিশ্বব্যাংকে নিয়োগের ক্ষেত্রে সরাসরি কিছু করার সুযোগ ইউরোপীয় পার্লামেন্টের নেই বলেও উল্লেখ করেন ল্যাম্বার্ট। তিনি বলেন, কেবল সরকারগুলোই এ আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্য।
“তবে আমি নিশ্চিত, (এই প্রতিনিধি দলের) কেউ না কেউ বার্তাটি তাদের সরকারের কাছে পৌঁছে দেবে,” যোগ করেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রীর ওই প্রস্তাব আসলে ‘রাজনৈতিক উপহাস’ ছিল কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে ল্যাম্বার্ট বলেন, “আমার মনে হয়, কেউ এ প্রস্তাব দিতেই পারেন।”
বিশ্ব ব্যাংককে নিয়ে নতুন করে ভাবা প্রয়োজন- এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, ওয়শিংটনভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানে যেভাবে পরিচালকদের নিয়োগ দেওয়া হয় তাতেও পরিবর্তন আনা উচিৎ।
বিশ্ব ব্যাংকে সংস্কার
ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধি দলের প্রধান ল্যাম্বার্ট বলেন, বিশ্ব ব্যাংকের প্রধানের পদটি সবার জন্য উন্মুক্ত হওয়া উচিত এবং শুধু একটি দাতা দেশের নাগরিকদের মধ্যেই এটা সীমাবদ্ধ থাকা ঠিক নয়।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এ প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরুর পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকরাই এ বিশ্ব সংস্থার প্রধান হয়ে আসছেন।
“ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ও অক্সফামের মতো এনজিগুলো বিশ্ব ব্যাংকে সংস্কার নিয়ে সোচ্চার রয়েছে,” বলেন ল্যাম্বার্ট।
তিনি বলেন, “আমরা নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা চাই এবং বিশ্ব ব্যাংক প্রধানের এ দায়িত্ব পালনের জন্য চাকরির যোগ্যতা স্পষ্ট হতে হবে।
“একটি অবাধ ও স্বাধীন প্রক্রিয়ায় এ নিয়োগ দেখতে চাই আমরা।”
ইউনূস প্রসঙ্গ
ল্যাম্বার্ট দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, মুহাম্মদ ইউনূসের বিষয়ে কোনো অবস্থান ইউরোপীয় পার্লামেন্টের নেই।
“অধ্যাপক ইউনূসকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কথা বলছে। তবে গ্রামীণ ব্যাংকে অধ্যাপক ইউনূসকে পুনর্বহালের বিষয়ে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের কোনো বক্তব্য নেই।”
এ বিষয়ে ইউনূসের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে কি না জানতে চাইলে ল্যাম্পার্ট ‘না’ সূচক উত্তর দেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের আগে তারা ইউনূসের সঙ্গে দেখা করেছিলেন।
রাজনৈতিক সংলাপ
ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্য বলেন, ২০১৪ সালে একটি উৎসবমুখর পরিবেশে অবাধ ও স্বচ্ছ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে সব রাজনৈতিক দলের নেতাদের প্রচেষ্টা জোরদার করা উচিত।
“একটি নির্বাচনের ফল নিয়ে বিতর্ক উঠলে তা কোনো রাজনৈতিক দলের জন্য শুভ হবে না। মতৈক্যে পৌঁছালে তাতে সব রাজনৈতিক দলের স্বার্থ রক্ষা হবে।”
“একটি অবাধ ও স্বচ্ছ নির্বাচনের জন্য সব রাজনৈতিক দলকে একসঙ্গে কাজ করা উচিত যেখানে নির্বাচনী ফলে সবার আস্থা থাকবে,” বলেন তিনি।
দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন
ল্যাম্বার্ট বলেন, দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব।
“আমরা ইউরোপে এ ধরনের নির্বাচন করি।”
অবশ্য কোনো নির্বাচনের আগে কিছু বিধান অবশ্যই কার্যকর করতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
“আমার মনে হয় এটা কঠিন।”
ল্যাম্বার্ট বলেন, এসব বিধান ঠিক করতে অবিলম্বে রাজনৈতিক দলগুলোর সংলাপ শুরু করা উচিত এবং তা নির্বাচনের কয়েক সপ্তাহ আগে শুরু করলে হবে না।
খালেদার উদ্বেগ
বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া দেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বলে জানান ল্যাম্বার্ট।
“তবে আমি যা বুঝেছি তাতে তারা সমাধানে পৌঁছাতে চান। তিনি (খালেদা) আমাকে বলেছেন, নির্বাচনের আগের সময়ে নির্দলীয় সরকার চান তিনি,” বলেন তিনি।
সীমান্ত হত্যা
ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধি দলের প্রধান বলেন, সীমান্তে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তিনি মর্মাহত।
“তারা (ভারতীয়) ভাবতে পারে যে, আপনারা চোরাচালানকারী বা যে কোনো কিছু। কিন্তু এজন্য কেউ কাউকে হত্যা করতে পারে না,” বলেন ল্যাম্বার্ট।
তিনি জানান, ব্রাসেলসে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতের কাছে বিষয়টি তারা তুলবেন এবং ভারত সফরের সময় এর পাশাপাশি অভিন্ন নদীর পানি বণ্টনের বিষয়টিও তুলবেন তারা।

Advertisements

About EUROBDNEWS.COM

Popular Online Newspaper

Discussion

Comments are closed.

%d bloggers like this: