অর্থনীতি

ইউনূস রাজি থাকলে পুনর্বিবেচনা করা হবে: মজিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনা বলেছেন, ‘ড. মুহাম্মদ ইউনূস যদি বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়নের জন্য রাজি থাকেন, তাহলে আমি নিশ্চিত তাঁকে ওই পদের পুনর্বিবেচনা করা হবে।’
আজ মঙ্গলবার রাজশাহী শিল্প ও বণিক সমিতি মিলনায়তনে বাংলাদেশের স্বেচ্ছাসেবকদের রাজশাহী জেলা কমিটি গঠন ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে শেষে সাংবাদিকেরা তাঁর কাছে জানতে চান, কয়েক দিন আগে বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইউনূসকে বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট করার আহ্বান জানিয়েছেন। এখন যুক্তরাষ্ট্র তাঁকে সমর্থন দেবে কি না। এর জবাবে মজিনা এ কথা বলেন।
মজিনা বলেন, ‘আমি জানি গ্রামীণ ব্যাংক খুব ভালো। ১৯৯৮ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আমি বাংলাদেশে ছিলাম। সে সময় আমি অনেক গ্রামীণ গ্রুপে গিয়েছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি নিজের চোখে সবচেয়ে দুস্থ ও দরিদ্র মানুষকে সাহায্য করতে দেখেছি। নারীরা নিজেদের জীবিকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন—এটা একটা সুন্দর দিক।’
মজিনা বলেন, ‘তিন মাস পর আমি আবার ফিরে এসেছি। এর মধ্যে গ্রামীণ ব্যাংকের ঋণ গ্রহীতা দলের সঙ্গে দেখা করেছি এবং উত্সাহিত হয়েছি। অনেক মানুষ বলেছে, যেটা করতে পারা যাবে না, ইউনূস তা করে দেখিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, ‘আমি তাঁর কাজের প্রশংসা করি।’
অপর এক প্রশ্নের জবাবে মজিনা বলেন, এক বা দুই দশকের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হবে। তিনি আরও বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, আগামী ১০ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এ দেশ বিশ্বের সবচেয়ে বড় তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক দেশ হবে। এই দেশ হাউজহোল্ড টেক্সটাইল, চামড়াজাতীয় তৈরি পণ্য, তথ্যপ্রযুক্তি ও অ্যানিমেশন, ওষুধ উত্পাদন সামগ্রী রপ্তানিতে বড় ভূমিকা রাখতে পারে।’ তিনি বলেন, এটা স্বপ্ন নয়, সত্যি। তিনি আরও বলেন, ‘আমার কথা আপনারদের বিশ্বাস করতে হবে না। যারা চামড়াজাত পণ্য, ওষুধ ও জাহাজ নির্মাণ কারখানায় কাজ করছে, তাদের জিজ্ঞেস করেন। তারাই বলবে।’ তিনি স্বীকারে বলেন, ‘পোশাকের বড় রপ্তানিকারক হতে বাংলাদেশের অবকাঠামো, সড়ক, বিমানপথ, বন্দর, পাওয়ার সাপ্লাই, দুর্নীতি, আইনের শাসন, বিনিয়োগের পরিবেশ ও রাজনীতি অস্থিরতার বাধা রয়েছে। তার পরও আমি বিশ্বাস করি, এই বাধা অতিক্রম করে করে বাংলাদেশ মধ্য আয়ে দেশে হবে।’
অপর এক প্রশ্নের জবাবে সাংবাদিক সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডকে মর্মান্তিক ও ভয়ংকর উল্লেখ করে মজিনা বলেন, গণমাধ্যম হচ্ছে গণতন্ত্রের মৌলিক উপাদান। মুক্ত ও শক্তিশালী গণমাধ্যম ছাড়া গণতন্ত্র টিকতে পারে না। তার পরও গণমাধ্যম যদি আক্রমণের শিকার হয়, তাহলে এটা আরও ভয়াবহ। তিনি আরও বলেন, ‘পুলিশ এ মামলা সক্রিয়ভাবে তদন্ত করছে। অধিকতর দক্ষতার সঙ্গে পুলিশের অপরাধ তদন্তের যোগ্যতা উন্নয়নে এখানে যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি প্রকল্প রয়েছে। আমার বিশ্বাস, পুলিশ সেই দক্ষতা কাজে লাগাচ্ছে।’
বেলা তিনটার দিকে রাজশাহী শিল্প বণিক সমিতি ভবনে স্বেচ্ছাসেবকদের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মজিনা বাংলাদেশকে নতুন ও সোনার বাংলাদেশ হিসেব উল্লেখ করে বলেন, এই দেশ সবার জন্য বয়ে আনবে সমৃদ্ধি, সুস্বাস্থ্য শিক্ষা ও আশা। তিনি বলেন, আমেরিকার জাতীয় উন্নয়নে স্বেচ্ছাসেবীরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। শুধু গত বছরে ছয় কোটি আমেরিকান নিজেদের লোকালয়ে স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে কাজ করছে। এর পরে তিনি নগরের উত্তরা কমিউনিটি সেন্টারে মাদ্রাসা শিক্ষকদের ইংরেজি প্রশিক্ষণ কোর্সের সনদ বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

Advertisements

About EUROBDNEWS.COM

Popular Online Newspaper

Discussion

Comments are closed.

%d bloggers like this: