প্রবাস বাংলা

ব্রিটেনে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রাথীদের বস্তিতে মানবেতর জীবনযাপনের চিত্র

This slideshow requires JavaScript.

নজরূল ইসলাম মাসুদ ,লণ্ডন: একসময়ের স্বপ্নের দেশ যুক্তরাজ্যে স্বপ্নভঙ্গের দহন নিয়ে আত্তগোপনে অসহনীয় দিন কাটাচ্ছে  এ দেশে আশ্রয় প্রাথী অনেকই। এমনই মানবেতর জীবন পার করতে হচ্ছে যে ঘুমানোর জন্য শেষ পর্যন্ত ব্রিটেনের বিখ্যাত হিত্রু এয়ারপোর্টের নিকটবর্তী এম ৪ হাইওেয়ের পাশের রাস্তার ব্রিজের নীচে শেষ আবাস্থল হিসাবে বেছে নিয়েছে অনেকেই। সারা দিনের হাড় ভাঙ্গা খাটুনির পর এমন ঘুম যে, রাস্তা থেকে মাত্র কয়েক ফুট দূরে গাড়ীর আওয়াজ এদের ঘুম কেড়ে নিতে পারছে না। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, কেন  এরা এই মানবেতর জীবন বেঁছে নিচ্ছে ব্রিটেন সহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশকে?

প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় যখন সারা ইউরোপই জমে ছিল, ঠিক তখনো এই হতভাগ্যদের যাবার কোন পথ ছিল না, ছিলনা কোথাও মাথা গুছানোর মত স্থান। আমাদের দেশের বস্তিতে যেভাবে মানুষ থাকে ঠিক তেমনই দেখা যাচ্ছে এদের ক্ষেত্রে- ছড়িরে ছিটিয়ে আছে বোতল, জুতো এবং নিত্য দিনের জিনিস- এখানে সেখানে। হাজারো সপ্ন নিয়ে বিলেতে আসা এইসব মানুষের সপ্ন এখন স্বপ্নভঙ্গে রূপ নিয়েছে।

লিটল পাঞ্জাব হিসাবে আখ্যা পাওয়া এসব অবৈধ ইম্মিগ্রান্টরা বাড়িহীন(হোমলেস), চাকুরী বিহীন (জবলেস) এবং আশাহত(হুপলেস)।এরা নিজেদেরকে হেসটন ব্রিজের মানুষ বলে থাকে, যেখানে তাদের এক একটি রাত পার হচ্ছে কঠিন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে।

৩০ জনেরও অধিক অবৈধ হোমলেস ইম্মিগ্রান্টের একটি দলকে এখানে পাওয়া যায় যখন কেউ এদের পাশ দিয়ে গাড়ী চালিয়ে যান এবং মাত্র ২০ গজ দুরের বাড়ি থেকেও এদের পপ্রত্যক্ষ করা যায়।

বিষয়টা আসলেই বেশ হৃদয়বিধারক যে, অনেক সপ্ন নিয়ে এদেশে প্রায় ২ বছর আগে এসে এখনো এরা এখানে কিছুই করতে পারেনি। তাদের প্রায় প্রতিদিন যাচ্ছে খেয়ে না খেয়ে যা অধিকাংশই আসে বিভিন্ন জনের দান এবং বিভিন্ন চ্যারিটি মাধ্যমে।

রাজনীতিবিদরা বলাবলি করছেন যখন ব্রিটেন থেকে মিলিয়ন পাউন্ড সাহায্য যাচ্ছে ভারতে ঠিক তখনি এখানে থাকা মানুষের কোন সাহায্য নেই দিনের পর দিন, মাস এবং বছর ধরে। যদি তাঁরা বৈধ হয়ে থাকে তাহলে তাদের সাহায্য কর, আর যদি  অবৈধই হয়, কেন তাদের ভারতে ফেরত যেতে সাহায্য করা হচ্ছে না-সকলের একটাই এখন প্রশ্ন। তথ্য সুত্রঃ ডেইলি মেইল

Advertisements

About EUROBDNEWS.COM

Popular Online Newspaper

Discussion

Comments are closed.

%d bloggers like this: