রাজনীতি

বাধার পরিণাম শুভ হবে না: খালেদা

ঢাকা, মার্চ ০৯ – আগামী ১২ মার্চের মহাসমাবেশে বাধা দেওয়ার পরিণাম শুভ হবে না বলে সরকারকে হুঁশিয়ার করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, “আমি সরকারকে বলব, এই কর্মসূচিতে আঘাত এলে তা হবে গণতন্ত্রের ওপর আঘাত। বাধা দিয়ে, সংঘাত ডেকে কিংবা নাশকতা করে গণতন্ত্রকে বিপন্ন করবেন না। এর পরিণাম শুভ হবে না।”

তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি পুনর্বহালের দাবিতে ১২ মার্চ ঢাকায় সমাবেশ করছে বিরোধী দল, এতে সারাদেশ থেকে নেতা-কর্মীরা সমবেত হবেন।

খালেদা জিয়ার ডাকা এই কর্মসূচি যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষার ষড়যন্ত্রের অংশ বলে দাবি করে আসছে সরকারি দলের নেতারা।

শুক্রবার সকালেই এক সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বিরোধী দলের সমাবেশ বন্ধ করতে পুলিশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

মহাসমাবেশ শান্তিপূর্ণ হবে জানিয়ে খালেদা বলেন, “শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করতে না দিলে আগামীতে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া ছাড়া আমাদের সামনে আর কোনো বিকল্প থাকবে না। তাই আমি আহ্বান জানাব, সব অপতৎপরতা অবিলম্বে বন্ধ করুন। শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালনে সহায়তা করুন।”

প্রেসসচিব মারুফ কামাল স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে খালেদা জিয়া সরকারের সব ‘ভয়ভীতি ও বাধা’ উপেক্ষা করে দলমত নির্বিশেষে রাজধানীবাসী ও সারাদেশের নাগরিকদের মহাসমাবেশে যোগ দেওয়ার আহবান জানান।

তিনি বলেন, “নির্দলীয়-নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিধান সংবিধানে পুনঃপ্রবর্তনের মাধ্যমে সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ পন্থায় ক্ষমতা পরিবর্তনের ধারাকে রক্ষার জন্য আমরা আন্দোলন করছি।”

মহাসমাবেশ থেকে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির যে আশঙ্কার কথা সরকারি দলের নেতারা বলে আসছেন, সে বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, “আমরা সন্ত্রাস-নৈরাজ্যে বিশ্বাস করি না। রোড মার্চ ও সমাবেশ আমরা শান্তিপূর্ণভাবে করেছি। ১২ মার্চের কর্মসূচিতে আমরা আরেকবার নজির স্থাপন করতে চাই।”

সমাবেশে যোগদান বাধাগ্রস্ত করতে সারাদেশে গণগ্রেপ্তার চালানো হচ্ছে দাবি করে তা বন্ধের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান বিরোধীদলীয় নেতা। গ্রেপ্তার নেতা-কর্মীদের মুক্তিও দাবি করেন তিনি।

সমাবেশে আগতদের হোটেল কক্ষ এবং আসতে বাস ভাড়া দিতে বারণের সমালোচনা করে খালেদা বলেন, সমাবেশ করা রাজনৈতিক দল ও নাগরিকদের সাংবিধানিক ও গণতান্ত্রিক অধিকার। সরকার আজ সেই অধিকারে নগ্ন হস্তক্ষেপ করছে।

“গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখার স্বার্থে আমি এসব অপতৎপরতা অবিলম্বে বন্ধ করার আহ্বান জানাচ্ছি,” বলেন তিনি।

মহাসমাবেশে জনগণের ব্যাপক সাড়া দেখে সরকার ‘বেসামাল’ হয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেন খালেদা। তিনি বলেন, “আমাদের কর্মসূচির আগে ও পরে শাসক জোট তাদের দলীয় কর্মসূচি ঘোষণা করেও স্বস্তি বোধ করতে পারছে না। প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে শাসক দলের নেতা-কর্মীরা অশ্ল¬ীল ও আক্রমণাত্মক ভাষায় হুমকি দিতে শুরু করেছেন।”

বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের হেনস্তা না করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। উস্কানির মুখে শান্তি বজায় রাখতেও দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

Advertisements

About EUROBDNEWS.COM

Popular Online Newspaper

Discussion

Comments are closed.

%d bloggers like this: