জাতীয়

যেসব কারণে সোহেল তাজের পদত্যাগ!

ঢাকা, ২৫ এপ্রিল: স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে তানজিম আহমদ সোহেল তাজ পদত্যাগ করেন মূলত বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার শেখ ফজলুল করিম সেলিমের অশোভন আচরণের প্রতিকার না পেয়ে। আর এখন সংসদ সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করলেন এ ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় ও তিনবছর দফতরবিহীন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তার নাম  রাখায় ক্ষুব্ধ হয়ে।

সোহেল তাজের ঘনিষ্ট সূত্র জানায়, ঘটনার সূত্রপাত ২০০৯ সালের জুনে। সাবেক বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে বিদেশে যাওয়ার সময় বিমানবন্দরে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বাধা দেয়ায় শেখ সেলিম ক্ষুব্ধ হন। টুকুর মেয়ের সঙ্গে তখন শেখ সেলিমের ছোট ছেলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। অবশ্য বর্তমানে টুকু তার বেয়াই।

শেখ ফজলুল করিম সেলিম চেয়েছিলেন প্রতিমন্ত্রী তার হবু বেয়াইয়ের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে বিদেশে যাওয়ার ব্যবস্থা করবেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কারণে প্রতিমন্ত্রী ওই কাজটি করতে অস্বীকৃতি জানান।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ছিল বিএনপির যেসব মন্ত্রীর বিরুদ্ধে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে দুর্নীতির মামলা হয়েছে, তারা বিদেশে যেতে পারবেন না। এই নির্দেশের কথা প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ তার দলের নেতা শেখ ফজলুল করিম সেলিমকে জানিয়ে এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার জন্য অনুরোধ করেন।

কিন্তু শেখ সেলিম তা মানেননি। তার কথা সোহেল তাজকেই এটা করতে হবে। এ নিয়ে কথাবার্তার এক পর্যায়ে শেখ সেলিম উত্তেজিত হয়ে প্রতিমন্ত্রীকে থাপ্পড় মারেন।

পরে সোহেল তাজ এ বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবহিত করে তার প্রতিকার চান। কিন্তু এর কোনো প্রতিকার না পাওয়ায় তানজিম আহমদ সোহেল তাজ ৩১ মে যমুনায় গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে পদত্যাগপত্র তার হাতে তুলে দেন।

ওইদিন প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগপত্রটি গ্রহণ করেননি। ফলে পরের দিন ১ জুন পিএসের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পদত্যাগপত্র জমা দেন তানজিম আহমদ সোহেল তাজ।

খবর পেয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ওইদিন দুপুরে সোহেল তাজের বোন মাহজাবিন আহমদ মিমির ধানমন্ডির বাসায় ছুটে যান। সেখানে অবস্থানরত সোহেল তাজকে পদত্যাগপত্র প্রত্যাহার করার অনুরোধ করেন তিনি। কিন্তু সোহেল তাজ তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেননি।

এ সময় সোহেল তাজ বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য শেখ সেলিমের অশোভন আচরণ ছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অযাচিত হস্তক্ষেপের প্রসঙ্গও তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এ বিষয়গুলো প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করার পরও তিনি কোনো উদ্যোগ নেননি। তাই মানসম্মান নিয়ে থাকতে হলে তার পক্ষে আর মন্ত্রিত্ব কন্টিনিউ করা সম্ভব নয়। এরপর ৯ জুন তিনি যুক্তরাষ্ট্র চলে যান।

Advertisements

About EUROBDNEWS.COM

Popular Online Newspaper

Discussion

Comments are closed.

%d bloggers like this: